Return   Facebook

সার্বজনীন বিচারালয়

রিজ্ওয়ান 2017

বিশ্বের বাহা’ইদের প্রতি

সুপ্রিয় বাহা’ই বন্ধুগণ

দেখুন মহত্তম নামের সমাজটি কিভাবে উত্থিত হচ্ছে! নতুন পরিকল্পনার আরম্ভ থেকে মাত্র একটি বছর অতিক্রান্ত হয়েছে, কি করার চেষ্টা করা হচ্ছে এবং কি অর্জিত হতে শুরু করেছে প্রতিবেদনগুলি তার সাক্ষ্য দিচ্ছে। বৃদ্ধির ৫,০০০ কার্যক্রমের জন্য বৃহত্তর তীব্রতা নিয়ে আসা প্রচেষ্টার একটি স্তর যা সম্পূর্ণরূপে নজিরবিহীন। পরিকল্পনার মূল বিষয়বস্তু উপর বন্ধুদের উপলব্ধি বৃদ্ধির সাথে বন্ধুদের বৃহৎ সংখ্যাগুলি তাদের সাড়াদানের বৈশিষ্ট্যে দৃঢ়তাসহকারে ও ত্যাগের সাথে ইহার প্রয়োজনের উপর কাজ করছে। যেরূপ বিবেচনা করা হয়েছিল, কয়েকটি নিবিড় বৃদ্ধির কার্যক্রম যা দীর্ঘদিন যাবৎ পোষণ করা হয়েছে সেগুলি জ্ঞান ও সম্পদের ভাণ্ডারসমূহে পরিণত হচ্ছে, পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলিতে সাহায্য করছে এবং অভিজ্ঞতা এবং অন্তর্দৃষ্টির দ্রুত বিতরণকে সমন্বয় করছে। নিবিড় কার্যক্রমের কেন্দ্রগুলি-ঐ সকল মহল্লা ও গ্রাম যেখানে সমাজ-গড়ার কাজ সর্বাধিক কেন্দ্রীভূত-সম্মিলিত রূপান্তরের জন্য উর্বর ভূমিতে পরিণত হওয়ার প্রমাণ দিচ্ছে। সাহায্যকারী বোর্ডের সদস্যগণ এবং তাদের সহকারীদের প্রসারিত এবং প্রদীপ্ত বাহিনী বিশ্বাসীদের প্রচেষ্টাসমূহ উদ্দীপিত করছে, কিভাবে বিভিন্ন পরিস্থিতিতে বৃদ্ধির প্রক্রিয়াকে এগিয়ে নিতে হয় এবং উপায়সমূহ শনাক্ত করতে হয় যা প্রতিটি ক্লাস্টারের অবস্থার সাথে মানানসই হয় তার একটি দূরদৃষ্টি অর্জন করতে তাদেরকে সাহায্য করছে। আঞ্চলিক বাহা’ই কাউন্সিলসমূহ তাদের নিজ নিজ জাতীয় আধ্যাত্মিক পরিষদ কর্তৃক সমর্থিত হয়ে শিখছে কিভাবে একইসাথে ক্লাস্টারের সর্বত্র পরিকল্পনার ভরবেগ গড়ে তোলা যেতে পারে, একইসময়ে যেসমস্ত দেশে আঞ্চলিক বাহা’ই কাউন্সিল নাই সেসব দেশে, জাতীয় পর্যায়ে নতুন প্রতিষ্ঠানসমূহ একই কাজ আরম্ভ করছে। যদিও, একটি জৈবিক প্রক্রিয়া থেকে যেরূপ প্রত্যাশা করা যায় যে, কোন কোন স্থানে দ্রুত অগ্রগতি প্রত্যক্ষ করা যাচ্ছে, কোথাও কোথাও এখনো আবির্ভূত হওয়ার অপেক্ষায় রয়েছে এবং বিশ্বে নিবিড় বৃদ্ধির কার্যক্রমের মোট সংখ্যা ইতোমধ্যে বৃদ্ধি পেতে শুরু করেছে। এ ছাড়াও, আমরা দেখে আনন্দিত যে, পরিকল্পনার কার্যকলাপে অংশগ্রহণ ইহার প্রথম চারটি কালচক্রের সময় লক্ষণীয়ভাবে উদ্বেলিত হয়েছে।

আগামী বছর কি নিয়ে আসতে পারে সে ব্যাপারে লক্ষণগুলি এর চেয়ে বেশী প্রতিশ্রুতিময় হতে পারে না । আশীষপূত সৌন্দর্যের প্রতি তাঁর জন্মের দুই শততম বার্ষিকীতে তাঁর ধর্মের পরিসর প্রসারিত করা ব্যতীত তাঁর প্রিয়জনদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টা আর কি অধিকতর উপযুক্ত হতে পারে? বাহা’ই বিশ্ব কর্তৃক দুইটি দ্বিশতবার্ষিকীর প্রথমটির উদ্যাপিত হওয়া এইভাবে সর্বাধিক রোমাঞ্চকর পরিপ্রেক্ষিতগুলি সহকারে একটি উপলক্ষ। ঠিকভাবে দেখা হলে, বাহা’উল্লাহ্র সাথে হৃদয়গুলি যুক্ত করার জন্য এই বছর বিশ্বব্যাপী একক বৃহৎ সুযোগ রয়েছে । আগামী মাসগুলিতে, আসুন সকলে এই মহামূল্য সুযোগ সম্বন্ধে মনোযোগী হই এবং সম্ভাবনাগুলির প্রতি সচেতন হই যা প্রত্যেক স্থানে তাঁর জীবন এবং সুমহান উদ্দেশ্য সম্বন্ধে অন্যদেরকে পরিচিত করানোর জন্য বিদ্যমান রয়েছে। কারণ শিক্ষাদানের সুযোগ যা এখন বাহা’ই বিশ্বের সম্মুখে রয়েছে, তা পরিপূর্ণরূপে গ্রহণ করতে হবে, কথোপকথনগুলি যা প্রত্যেক পেশার মানুষের সাথে উন্মোচিত হতে পারে, তার প্রতি সৃজনশীল মনোযোগ দেয়ার প্রয়োজন হবে। এইরূপ অর্থপূর্ণ কথোপকথনের ফলে কখনো কখনো তাৎক্ষণিকভাবে উপলব্ধির ক্ষমতা উচ্চতর হয় এবং হৃদয়সমূহ উন্মুক্ত হয়। এই প্রশংসনীয় কর্মে সকলে সেবাদানের একটি উপায় খুঁজে পায় এবং আনন্দ যা এই কাজে নিয়োজিত হওয়া থেকে আসে তা থেকে যেন কেউ যেন নিজেকে বঞ্চিত না করে। আমরা একক প্রিয়তমের নিকট সানুনয় প্রার্থনা করছি, এই সমগ্র দ্বিশতবার্ষিকী বছরটি যেন ঈশ্বরের দিবসের উদয় সম্বন্ধে অন্যান্যদেরকে বলার পবিত্রতম ও মধুরতম আনন্দে পরিপূর্ণ থাকে।

দায়িত্বগুলি যা বিশ্বাসীদের জন্য অবশ্য পালনীয় তা বিশ্বের বিভ্রান্তি, অবিশ্বাস এবং ধোঁয়াশাচ্ছন্নতার কারণে অতীব জরুরি হয়ে পড়েছে। বস্তুত, বন্ধুগণকে আলো জ্বালানোর প্রত্যেক সুযোগ ব্যবহার করতে হবে যা পথটিকে আলোকিত করতে এবং উদ্বিগ্নের প্রতি নিশ্চয়তা, হতাশের প্রতি আশা দিতে পারে। অভিভাবক কর্তৃক একটি বাহা’ই সমাজের প্রতি প্রদত্ত উপদেশ সম্বন্ধে আমাদেরকে স্মরণ করিয়ে দেয়া হয়েছে যা এইরূপ বাক্যাবলীতে ছিল, মনে হয় যেন সেগুলি আমাদের সময়ের জন্য অভিপ্রেত ছিল: “যেহেতু বর্তমান সময়ের সমাজের কাঠামো অশুভ-সূচক ঘটনাবলী এবং বিপর্যয়ের ক্লান্তি এবং কষ্টকর পরিস্থিতির অধীনে উঠা-নামা করছে এবং ফাটল সৃষ্টি হচ্ছে, যেহেতু মতভেদগুলি যা জাতি থেকে জাতিকে, শ্রেণী থেকে শ্রেণীকে, বর্ণ থেকে বর্ণকে এবং ধর্মীয় মতবিশ্বাস থেকে ধর্মীয় মতবিশ্বাসকে পৃথককারী বিভাজনকে অধিকতর লক্ষণীয় করছে, বহুগুণ বৃদ্ধি করছে, তাই পরিকল্পনার পরিচালনাকারীগণকে অবশ্যই তাদের আধ্যাত্মিক জীবনে এবং প্রশাসনিক কার্যকলাপে আরো বৃহত্তর সংযোগ স্থাপন করতে হবে এবং সম্মিলিত প্রচেষ্টার, পারস্পরিক সহায়তার এবং তাদের সম্মিলিত উদ্যোগে বৈরিতামুক্ত উচ্চতর মানদণ্ড প্রদর্শন করতে হবে।” সব সময় ধর্মের কাজের আধ্যাত্মিক গুরুত্ব এবং একাগ্রচিত্ত দৃঢ়সংকল্পের উপর জোর দেয়া, যা দ্বারা বিশ্বাসীগণকে তাদের পবিত্র কর্তব্য পালন করতে হয়, শৌগী এফেন্দী রাজনৈতিক বিতর্কে যেকোনো প্রকারে অংশগ্রহণ করা, বিজড়িত হওয়া এবং গুরুত্বহীন বিষয় নিয়ে ঝগড়া করার বিরুদ্ধেও সতর্ক করেছেন। “তারা যেন সকল স্বতন্ত্রবাদ এবং দলভূক্ততার ঊর্ধ্বে উত্থিত হয়, এক উপলক্ষে তিনি জোরালোভাবে সাবধান করেন, “বৃথা বিরোধসমূহ, সংকীর্ণ-মনা বিবেচনাগুলি, ক্ষণস্থায়ী তীব্র উত্তেজনাগুলির ঊর্ধ্বে যা মুখমণ্ডলকে আলোড়িত করে এবং একটি পরিবর্তনশীল বিশ্বের মনোযোগ আকর্ষণ করে।”এইগুলি অবশ্যম্ভাবী পুঞ্জীভূত ক্রোধের বহিঃপ্রকাশ যা বিক্ষুদ্ধ ও বিভক্ত সমাজকে বার বার আন্দোলিত করছে। এই প্রকার চিত্তবিক্ষেপের সাথে নিয়োজিত হওয়া খুব বেশী ঝুঁকিপূর্ণ। যেহেতু বাহা’উল্লাহ্র প্রত্যেক অনুসারী অবগত রয়েছেন যে, “মানবজাতির চূড়ান্ত কল্যাণ ইহার বিভেদগুলি অতিক্রম করা এবং ইহার একতা দৃঢ়ভাবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার উপর নির্ভরশীল। এক একটি অবদান যা বাহা’ইরা তাদের সমাজের প্রতি করে থাকেন তার লক্ষ্য হচ্ছে একতা প্রতিপালন করা; সমাজ-গড়ার প্রতিটি প্রচেষ্টা এই পরিণতির দিকে পরিচালিত হয়। যারা কলহ দ্বারা ক্লান্ত, তাদের জন্য মহত্তম নামের ছায়াতলে বর্ধনশীল সমাজসমূহ, একতা কী অর্জন করতে পারে তার একটি জোরালো উদাহরণ নির্দেশ করে।

আমরা তাঁর এত অধিক সংখ্যক প্রিয়জনদের দেখতে পেয়ে পরম প্রভুগণের পরম প্রভুর প্রতি প্রশংসা জ্ঞাপন করছি, যারা এত অধিক সংখ্যক উপায়ে, তাদের সবকিছু প্রদান করছে যেন মানবজাতির মধ্যে একতার পতাকা ঊর্ধ্বে উত্তোলিত হতে পারে। সর্বাধিক সযত্নে লালিত বন্ধুগণ: যেহেতু এখন একটি অত্যন্ত মাঙ্গলিক বছর আরম্ভ হয়েছে, আমরা প্রত্যেকে কি গভীরভাবে চিন্তা করতে পারি না, কোন্ কোন্ স্বর্গীয় কাজগুলি সম্পাদন করতে তাঁর করুণা আমাদিগকে সাহায্য করতে পারে?

 

Windows / Mac